Home EXCLUSIVE BREAKING NEWS :: সোমবার বিকেল থেকেই লক ডাউন হচ্ছে রাজ্যের সব...

BREAKING NEWS :: সোমবার বিকেল থেকেই লক ডাউন হচ্ছে রাজ্যের সব পুর শহর

262
0

আনন্দ মুখোপাধ্যায় :: স্পট নিউজ :: ২০শে,মার্চ :: কলকাতা ::

করোনা নিয়ে আশঙ্কা এবার সত্যি হল। সোমবার বিকেল থেকে লক ডাউন হয়ে যাচ্ছে কলকাতা সহ রাজ্যের সব পুর শহর।রাজ্য জুড়ে এই নির্দেশিকা জারি করা হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নির্দেশিত জন কার্ফুর মধ্যেই এই পর্যন্ত আমাদের সামনে দুটি বড় সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হলো । এই বড় সিদ্ধান্তঅনুযায়ী, কিছুক্ষণের মধ্যেই নোটিফিকেশন জারি হবে।

পুর শহরগুলিতে কেবলমাত্র জরুরি ভিত্তিতে কিছু দোকান ও হাসপাতাল খোলা থাকবে বলে জানা গিয়েছে।চাল, ডাল, তেল সহ কিছু নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসই কেবলমাত্র কেনা যাবে। সংখ্যায় খুব দোকানই খোলা থাকবে। করোনা পরিস্থিতি যাতে খারাপের দিকে না যায়, তার জন্যই এই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এই নির্দেশিকা খুবই জরুরি ছিল বলে মনে করা হচ্ছে।

যতদিন যাচ্ছে, দেশজুড়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যাও। যে কারণে দেশজুড়ে ৭৫টি জেলায় লকডাউনের কথা ঘোষণা করা হয়েছে। ফলে রবিবার জনতা কারফিউর দিনই লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। এদিন নবান্নর তরফে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে এখবর জানিয়ে দেওয়া হয়।

কিন্তু প্রশ্ন হল, লকডাউন পরিস্থিতিতে শহরের ছবিটা ঠিক কী রকম হবে? কোন কোন পরিষেবা পাবেন সাধারণ মানুষ। কী কী বন্ধ থাকবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক।

রাজ্য সরকারের তরফে বলা হয়েছে, লকডাউন থাকলেও সমস্ত জরুরি পরিষেবা পাবেন আমজনতা। অর্থাৎ তাঁদের দৈনন্দিন জীবনে যা যা অত্যাবশ্যক জিনিসের প্রয়োজন হয়, সেই সব পরিষেবাই খোলা রাখা হবে। চাল-ডাল-তেল-নুনের মতো খাদ্যসামগ্রীর জন্য খোলা রাখা হবে মুদির দোকান ও রেশন দোকান। অত্যাবশ্যক পরিষেবা যেমন পানীয় জল, ওষুধের দোকান, দুধ ইত্যাদি খোলা থাকবে।

এছাড়া দমকল, পেট্রল পাম্প, শ্মশান, কবরস্থান, হাসপাতাল, প্যাথলজি ল্যাব, বিপর্যয় মোকাবিলার পরিষেবা মিলবে আগের মতোই। লকডাউনের আওতায় পড়বেন না সাফাইকর্মী এবং সংবাদমাধ্যমের কর্মীরা। তবে মাছের বাজার কিংবা সবজি বাজার প্রতিদিনই খোলা রাখা হবে, নাকি মাঝেমধ্যে খুলবে, তা এখনও স্পষ্ট করে জানানো হয়নি।

বিকাল ঠিক পাঁচটা বাজতেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষ দলমত নির্বিশেষে করোনা উদ্ভুত জরুরি পরিস্থিতির মোকাবিলায় নিয়োজিত কর্মীদের ধন্যবাদ এবং উৎসাহ দিতে বেরিয়ে আসেন ঘরের বাইরে । দূর থেকে ভেসে আসতে থাকে শঙ্খধ্বনি,হাততালি ও কাঁসর ঘন্টার শব্দ ।

মানুষ যে প্রধানমন্ত্রীর আবেদনে সাড়া দিয়েছেন এবং দেশের সংকট মুহূর্তে দলমত নির্বিশেষে দেশবাসী যে তাঁর পাশে দাঁড়িয়েছে সে জন্য তিনি ধন্যবাদ জানিয়েছে সকলকে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here