Home EXCLUSIVE হায় কোলকাতা ” এই কি মহাপ্রস্থানের পথ ” ?

হায় কোলকাতা ” এই কি মহাপ্রস্থানের পথ ” ?

3518
0

BREAKING NEWS

আনন্দ মুখোপাধ্যায় :: স্পট নিউজ :: ১৫ই,জুন ::কোলকাতা ::

আপনারা কি ঈশ্বরের কান্না শুনতে পাচ্ছেন ? হ্যাঁ আমরা আজকে সেই ঈশ্বর হয়ে যাওয়া মানুষ গুলোর কথাই বলবো যারা একদিন আপনার আমার পরিবার বা সমাজের লোক ছিলেন কিন্তু তাঁরা এই পৃথিবী থেকে বিদায় নিলেন চরম অবহেলা এবং অসম্মানের ভেতর দিয়ে । আজ তারা কাঁদছে কিন্তু আমরা সেই কান্না আর শুনতে চাইনা ।

হ্যা ঠিক ধরেছেন গড়িয়ার বোড়াল শ্মশানের ওই ১৩/১৪ টি শবদেহের কথাই বলছি ।

আমাদের হাতে একটি ভাইরাল ভিডিও এসেছে তার সত্যতা আমাদের পক্ষে যাচাই করা সম্ভব হয়নি । তাতে দেখা jacche যে প্রায় পচা গলা মৃতদেহ গুলিকে গলার মধ্যে আঁকশি লাগিয়ে উলঙ্গ অবস্থায় মাটি দিয়ে টেনে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে আর তাদের দেহ থেকে মাংস গলে গলে পড়ছে । কিন্তু ওরা কারা ? এই জানতেই আমাদের আজকের বিশেষ প্রতিবেদন

” এই কি মহাপ্রস্থানের পথ ” ?

আগে দেখুন সেই ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি |

দেখলেন তো সেই অমানবিক আচরণের দৃশ্যটি তাও আবার ভারতের সাংস্কৃতিক রাজধানী খোদ কলকাতার বুকে । এটি দেখার পর আমাদের বুক কেঁপে উঠেছিল । এর পরেই রাজ্য জুড়েই সমালোচনার ঝড় ওঠে আর শুরু হয়ে যায় রাজনীতির খেলা । একদলের অভিযোগ এগুলি লুকিয়ে রাখা করোনা রোগীর মৃতদেহ আর একদলের মতে এটি কিন্তু দাবীদারহীন কিছু মৃতদেহের । আর সেগুলি সরকারই তাঁদের নিজেদের খরচে সৎকার করে থাকেন ।

দেখুন রাজনীতির বহর যেখানে জড়িয়ে গেলেন স্বয়ং রাজ্যপালও । আসুন শুনবো এই নিয়ে রাজ্যের বিরোধী নেতা বিজেপির দিলীপ ঘোষের বক্তব্য । শুনলেন তো দিলীপ বাবুর কথা । তিনি কিন্তু সরাসরি এবং নিশ্চিত অভিযোগ তুলছেন এগুলি করোনা রোগীর মৃতদেহ ।

তিনি একজন দ্বায়িত্তবান নেতা আমরা আশাকরি তিনি নিজ দায়িত্তেই কথা গুলি বললেন এবং আগামী দিনে বাংলার মানুষকে তারপ্রকৃত সত্য জানিয়ে দেবেন । তবে তিনিও আমাদের মতোই একটি প্রশ্ন তুলেছেন যে ভাবে মৃতদেহগুলোকে অসম্মানের সঙ্গে মহাপ্রস্থানের দিকে এগিয়ে দিতে চলিলেন রাজ্য সরকার সেখানেই উঠছে হাজারো প্রশ্ন ।

এবার দেখুন রাজ্যের মহামহিম রাজ্যপালও কেমন ভাবে রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়লেন । তিনি রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান তাঁর জানার অধিকার অবশ্যই আছে আর তাই নিয়ে রাজ্য এবং রাজ্যপালের সাথে শুরু হয়ে গেলো দ্বৈরথ । আসুন শুনবো রাজ্যপাল কি বলছেন ।

রাজ্যপালের কাছে পৌর নিগমের এক আধিকারিক যে রিপোর্ট দিয়েছেন তাতে বলছেন এগুলি দাবীদারহীন মৃতদেহ এবং নিয়মমত মর্গে থেকে এনে সেগুলিকে রাজ্য সরকার সৎকার করছিলেন । যদি তাই হয় তাহলে গড়িয়ার শ্মশানে জনতার বিরোধিতায় কেন সেগুলিকে ফিরিয়ে নেওয়া হলো ? কেন পুলিশ এবং প্রশাসনের সহায়তায় ওখানেই সৎকার করা হলোনা ? এই প্রশ্নের জবাব কে দেবে ?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here