Home Accident আসানসোলের কাছেই লাইনচ্যুত কামরা, বিরাট দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেল ধানবাদ গামী ব্ল্যাক...

আসানসোলের কাছেই লাইনচ্যুত কামরা, বিরাট দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেল ধানবাদ গামী ব্ল্যাক ডায়মন্ড এক্সপ্রেস !

102
0

নিজস্ব সংবাদদাতা :: স্পট নিউজ লাইভ :: ২২শে,ডিসেম্বর ::

আসলে ভারতীয় রেলের এখন অধিকাংশই বেসরকারিকরণের দিকে এগোচ্ছে। আর এতেই যাত্রী নিরাপত্তা নিয়ে সংশয় দেখা দিচ্ছে তা আরও একবার চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিলো ব্ল্যাক ডায়মন্ড এক্সপ্রেসের এই দুর্ঘটনা।

রবিবার সকালে ব্ল্যাক ডায়মন্ড এক্সপ্রেস আসানসোল স্টেশন থেকে ধানবাদের পথে রওনা হয়। মেন লাইন থেকে লুপ লাইনে যাওয়ার সময় আচমকা ইঞ্জিনের পরের বগির চাকা লাইনচ্যুত হয়। গতি কম থাকায় বড় দুর্ঘটনা ঘটেনি। সকাল ১০টা ১৮ মিনিট নাগাদ ঘটনাটি ঘটে বলে রেল সূত্রে জানা গিয়েছে। ছুটির দিন হওয়ায় ট্রেনে যাত্রী সংখ্যাও অনেক কম ছিল। তবে আচমকা প্রবল

ঝাঁকুনি দিয়ে ট্রেন দাঁড়িয়ে যেতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন যাত্রীরা। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছন রেলের আধিকারিকরা। ওই ইঞ্জিন ও ক্ষতিগ্রস্ত কামরাটিকে রেখে ১১টা ৫৫ মিনিট নাগাদ ট্রেনটি ছাড়ার ব্যবস্থা করা হয়।

রেল সূত্রে জানা গিয়েছে, আসানসোল স্টেশন থেকে ট্রেন ছাড়ার পর ১০টা ১৮ মিনিট নাগাদ ট্রেনটি লাইনচ্যুত হয়। স্টেশনের কাছাকাছি হওয়ায় রেল আধিকারিকরা দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছে যান। তড়িঘড়ি ক্ষতিগ্রস্ত বগি ও ইঞ্জিনটি কেটে সরানোর কাজ শুরু হয়। যাত্রীরা জানান, আসানসোল স্টেশন ছাড়ার পরে ট্রেনটি অত্যন্ত ধীর গতিতে যাচ্ছিল। ট্রেনের গতি বেশি থাকলে বড় দুর্ঘটনা ঘটতেই পারত। তবে এমন ঘটনার পর স্বাভাবিক ভাবেই রেল নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন যাত্রীরা।

অল ইন্ডিয়া রেলওয়ে এমপ্লয়িজ কনফেডারেশনের সর্বভারতীয় কার্যকরী সভাপতি নির্মল মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘বর্তমান সরকারের আমলে রেলের রক্ষণাবেক্ষণের বিষয়টি একেবারে তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। নিম্নমানের জিনিস দিয়ে এবং বেসরকারি সংস্থার স্বার্থেই বিশেষ করে মধ্যবিত্ত বা সাধারণ মানুষের ট্রেনগুলি রক্ষণাবেক্ষণের নামে ছিনিমিনি খেলা চলছে। আ

আজকের এই ঘটনা আমাদের অভিযোগের প্রমাণ দিল। সে জন্যই আমরা চাই, উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত হোক। এতে কেউ হতাহত না হলেও বড় দুর্ঘটনা হতে পারত। এই বিষয়টি গুরুত্ব দেওয়া উচিত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here